অনন্য ইতিহাস গড়ার সামনে বাংলাদেশের মেয়েরা

155

রঙটিভি ডেস্ক: এমনিতেই ক্রিকেট গ্রাস করে নিয়েছে দেশের অন্য সব খেলাকে। না হলে আজ দেশের কোটি কোটি মানুষ অধীর অপেক্ষায় থাকত।

কারণ আজ এক অনন্য ইতিহাস গড়ার সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের মেয়েরা। ফুটবলে ছেলেরা ভুটানের কাছে হেরে যে কলঙ্ক নিয়ে এসেছে; তার বিপরীতে দেশকে একের পর এক সম্মান এনে দিচ্ছে সাবিনা-আনুচিংরা। সাফ ফুটবলে এই প্রথমবারের মত ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। শিরোপার নির্ধারণী ম্যাচে আজ টাইগ্রেসদের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত।

শিলিগুড়ির কাঞ্চনজঙ্ঘা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হবে ফাইনাল ম্যাচ। প্রতিপক্ষ ভারত টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন। আর বাংলাদেশের মেয়েদের গত তিনটি সাফের দুটিতেই বিদায় সেমিফাইনালে। শুধু কি তাই? পুরুষদের লজ্জার দিনে বয়সভিত্তিক, সিনিয়র, সব বিভাগেই সাফল্য পাচ্ছে মেয়েরা। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়নশিপ, এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলের বাছাইপর্বে চ্যাম্পিয়ন। সেই দলের ১৫ খেলোয়াড় নিয়ে গড়া এবারের জাতীয় দল। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের স্নেহপূর্ণ প্রশিক্ষণে প্রতিটি চ্যালেঞ্জে নিজেদের প্রমাণ করে চলছে অপ্রতিরোধ্য মেয়েরা।

সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে এবার ভারতের উদ্দেশ্য রওনা হয়েছিল মেয়েরা। সেই স্বপ্ন পূরণ করে আরও বড় স্বপ্নের সামনে দাঁড়িয়ে গোলাম রব্বানীর শিষ্যরা। সেটা মোটেও অসম্ভব নয় বলেই মনে হচ্ছে। টুর্নামেন্টে এখনও পর্যন্ত একটি গোলও খায়নি বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গলো (৭) করেছেন অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। সেমিফাইনালে মালদ্বীপকে ৬-০ তে উড়িয়ে দেওয়ার ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছেন স্বপ্না। ভারতের সঙ্গে ড্র করেছে বাংলার মেয়েরা। সেই ভারতের সামনে ফাইনাল ম্যাচে দাঁড়িয়ে তাই ভয়হীন ফুটবল খেলার মন্ত্র সাবিনা বাহিনীর।

তুখোড় আক্রমণভাগ আর শক্তিশালী রক্ষণ নিয়ে কোচ গোলাম রব্বানী বেশ সন্তুষ্ট। ম্যাচের আগের দিন তার কথায় ফুটে উঠল আত্মবিশ্বাস, “ভারতের সঙ্গে আমাদের মেয়েরা যে সাহস নিয়ে খেলেছে, যে পরিবর্তন ওদের মধ্যে হয়েছে, তা সবাই দেখেছে এখানে।”

অন্যদিকে প্রতিপক্ষ ভারতের কোচ সাজিদ ইউসুফ দারও বাংলাদেশকে সমীহ করছেন। সেই সঙ্গে কিছুটা বিস্মিতও তিনি। সংবাদ সম্মেলনে সেই বিস্ময় গোপন না করেই বললেন, “এমন বাংলাদেশকে আমি আগে কখনো দেখিনি। কিছুদিন ধরে ওরা অনেক উন্নতি করেছে। দুর্দান্ত ফুটবল খেলছে এখানে। আমরা ওদের মোটেও হালকাভাবে নিচ্ছি না। ”

কোচ ছোটনের দেওয় ছক অনুযায়ী দারুণ কাজে লাগাচ্ছে মেয়েরা। আজ যদি মাঠে সাবিনা বাহিনীর সেরাটা বের হয়ে আসে তবে আবারও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের মাথা উঁচু হবে। আর যদি শিরোপা বাংলাদেশের নাও হয়; তবু যেটুকু হয়েছে তাতেই কম কীসের?

LEAVE A REPLY