আমতলীতে বোরো চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা

66

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি।।
আমতলীতে গত বছরের তুলনায় এ বছর বোরো চাষ ৩০ ভাগ বৃদ্ধি পাওয়ায় বোরো চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা। এ বছর ভালো ফলনের আশা করছেন কৃষকরা। উপজেলা কৃষি বিভাগ বোরো আবাদে কৃষকদের উৎসাহিত
করে দক্ষমাত্রা অর্জনে নিরলসভাবে চেষ্টা করছে। বিভাগ বোরো আবাদে কৃষকদের উৎসাহিত করে দক্ষমাত্রা অর্জনে নিরলসভাবে চেষ্টা করছে। বুধবার সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার গুলিশাখালী,
আঠারোগাছিয়া, কুকুয়া, হলদিয়া, চাওড়া, আমতলী সদর ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে কৃষকরা বোরো চাষ করছে। কৃষকরা জমি চাষ, সেচ, বোরো ধানের চারা উত্তোলন ও বপন কাজে ব্যস্ত সময়
কাটাচ্ছেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাগেছে, গত বছর আমতলীতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১৩০ হেক্টর। এ বছর ওই লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে ৪ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষের আশাবাদ করছে কৃষি বিভাগ। বোরো ধান চাষের উপযুক্ত সময় মধ্য কার্তিক থেকে শুরু করে ফালগুন মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত। উচ্চ ফলনশীল জাতের বিরি-২৮, বিরি-২৯, বিরি- ৪৭ ও বিরি-৫৮ ধান চাষ করছেন কৃষকরা। বীজতলা
থেকে শুরু করে পাঁচ মাসের মধ্যে উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের ফলন আসে।

আমতলীর কৃষকরা এখন বোরো চাষে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। চিলা গ্রামের কৃষক জাফর হাওলাদার বলেন, তিন একর জমিতে ১২ হাজার টাকায় বোরো চারা উত্তোলন ও রোপনের জন্য চুক্তিতে দিয়েছি। ঘোপখালী গ্রামের আফজাল শরীফ জানান, গত বছর এক একর জমিতে বোরো চাষ করেছিলাম। ফলন ভালো হওয়ায় এ বছর ৫ একর জমিতে বোরো চাষ করেছি। আমতলী উপজেলা কৃষি অফিসার এসএম বদরুল আলম বলেন, সরকার দক্ষিনাঞ্চলে বোরো ধান চাষে অগ্রাধিকার দেয়ায় উপজেলা কৃষি বিভাগ সরকারি লক্ষ্য অর্জনে নিরলস চেষ্টা করছে।

LEAVE A REPLY