সাগরের পানিতে ডুবে চুয়েট ছাত্র নাকিব মোহাম্মদ খাব্বব এর মৃত্যু

135

চুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৩তম ব্যাচের ছাত্র নাকিব মোহাম্মদ খাব্বাব, ইমতিয়াজ, নিশাত, পিউলি, সিঁথি, তমাল ও আশিক সীতাকুন্ডের গুলিয়াখলী সৈকতে বেড়াতে যান। তারা দুটি নৌকা ভাড়া করে সাগরে ঘুরে বেড়ান। খাব্বাব ও ইমতিয়াজের নৌকায় স্থানীয় দুজন নারীও ছিলেন। বাকি পাঁচ শিক্ষার্থী অন্য নৌকায় ছিল। একপর্যায়ে দুই নারী সাগরে পড়ে যান। তখন সাঁতার জানা ইমতিয়াজ ঝাঁপিয়ে পড়ে তাদের উদ্ধারের জন্য। সাগর উত্তাল থাকায় একসময় খাব্বাবও পড়ে যান সাগরে। ইমতিয়াজ দুই নারীসহ তাকে আঁকড়ে ধরেন। কিন্তু সাঁতার না জানায় খাব্বাব হাল ছেড়ে দিলে তলিয়ে যান।

দুই নারীর মধ্যে একজনকে ইমতিয়াজ ও অন্যজনকে শেষপর্যন্ত জেলেরা উদ্ধার করতে সক্ষম হন। খাব্বাব’কে না পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি টিম উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে। এর মধ্যে আগ্রাবাদ বিভাগীয় অফিস থেকে আসা ডুবুরি দলও ছিল। রাত হয়ে যাওয়ায় খুব বেশি সময় উদ্ধার অভিযান চালানো সম্ভব হয়নি। বুধবার সকাল থেকে আবার অভিযান চালায়। আজ খাব্বাব এর মৃতদেহ জেলেরা জাল ফেলে উদ্ধার করে।

নাকিব মুহাম্মদ খাব্বাব কুমিল্লা ইবনে তাইমিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ এর অধ্যক্ষ শফিকুল আলম হেলালের বড় ছেলে । শফিকুল আলম হেলাল বর্তমানে হজ্জ্ব করার উদ্যেশে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন।

পারিবারিক সুত্রে জানা যায় নাকিব মুহাম্মদ খাব্বাবের জানাযা বুধবার বিকেল ৪ টায় চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ডের সাদেক মাস্তান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। ওই জানাযায় চুয়েটের শিক্ষক ও তার সহপাঠিরা অংশগ্রহণ করেন।

কুমিল্লা ইবনে তাইমিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে বাদ মাগরিব দ্বিতীয় জানাজা হয় এবং বাদ এশা ঢাকার আজিমপুর কবরস্থানে তৃতীয় জানাজা শেষে তাকে সেখানে দাফন করা হয় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

তার মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন কুমিল্লার ইবনে তাইমিয়া ট্রাস্ট গভর্নিংবডির সদস্য, শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ । তারা তার রূহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

LEAVE A REPLY