এনআরবি কনভেনশনের সাফল্য কামনা ব্রিটিশ হাইকমিশনার অ্যালিসন ব্লেইকের

74

ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (বিবিসিসিআই) আয়োজনে লন্ডনের ক্যানারি হোয়ার্ফে হয়ে গেল দারুণ গুরুত্বপূর্ণ আর প্রানবন্ত এক আয়োজন। ১৯ জুলাই বিবিসিসিআইয়ের উদ্যেগে ঢাকায় নিযুক্ত  ব্রিটিশ হাই কমিশনার এলিসন ব্লেইকের সম্মানে আয়োজিত মধ্যহ্নভোজে শামিল হন অতিথিরা।

শুরুতেই, অ্যালিসন ব্লেইকের সঙ্গে লন্ডনের নানা ক্ষেত্রের সফল বাংলাদেশিদের পরিচয় করিয়ে দেন ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট এনাম আলী এমবিই।

বৃটিশ হাই কমিশনার এলিসন ব্লেইক বলেন, বিবিসিসিআই দু’দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে বিপুল অবদান রেখে চলেছে। এনআরবিরা ( নন রেসিডেন্সিয়াল বাংলাদেশি) উভয় দেশের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে বৃটিশ হাই কমিশনার এলিসন ব্লেইক আসন্ন এনআরবি কনভেনশনের সাফল্য কামনা করেন।

এনাম আলী এমবিইকে তিনি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা  জানান এমন একটি চমৎকার আয়োজনের জন্য।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী নাগরিকত্ব আইনের খসড়া নিয়ে সরকারের সচেতনতার  কথা উল্লেখ করে বলেন, প্রবাসীদের নাগরিকত্ব ও মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে সরকার সচেষ্ট আছে।

এনাম আলী এমবিই, তার বক্তব্যে আগামী অক্টোবরে আসন্ন এনআরবি সম্মেলন সফল করার তাগিদ দেন। তিনি উল্লেখ করেন, একটি বিশেষ দিনকে এনআরবি ডে ঘোষণার দিকটিও।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান ও  সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দিপু মনি মুক্তিযুদ্ধে বিলেত প্রবাসীদের অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, এনআরবি বিজনেস কনভেনশন বাংলাদেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের অংশগ্রহণ আরও জোরদার করবে।

বিবিসিসিআই লন্ডন রিজিয়নের প্রেসিডেন্ট বশির আহমেদ’র পরিচালনায় দারুণ উপভোগ্য এই অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, বিবিসিসিআই’র সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বখ্ত ফারুক ও ড. ওয়ালী তসর উদ্দীন, ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার খন্দকার মোহাম্মদ তালহা, আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি, বিসিসিআই নর্থ রিজিয়নের প্রেসিডন্ট মাহতাব মিয়া এবং বিসিসিআই ডাইরেক্টর জেনারেল সাইদুর রহমান রেনু।

LEAVE A REPLY