কটিয়াদীতে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন

46

মোহাম্মদ আরীফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক স্বামীর বিরুদ্ধে। নিহত গৃহবধূর নাম রহিমা খাতুন (৪৭)।এ সময় মাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয় মেয়ে মারিয়া আক্তার (১১)।

রবিবার ভোর ৫টার দিকে কটিয়াদী উপজেলার মসুয়া ইউনিয়নের বড় মসুয়া গ্রামের মুন্সীপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ নিহতের স্বামী রতন মিয়াকে (৫৪) পার্শ্ববর্তী পাকুন্দিয়া উপজেলার বুরুদিয়া ইউনিয়নের দিগম্বরদী গ্রাম থেকে আটক করেছে। সে মৃত জাফর আলীর ছেলে।

নিহত রহিমা খাতুনের বড় ছেলে রেদুয়ান আহম্মেদ জানান, আমার বাবা মানসিক রোগী। আমরা ৪ ভাই বোন। রবিবার ভোরে মোবাইল ফোনে জানতে পারি আমার মাকে বাবা দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে গেছে। মা সেহরী খেয়ে ফজরের নামাজ পড়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। সংবাদ পেয়ে আমরা দুই ভাই বাড়িতে চলে আসি।

মা-বাবার সঙ্গে থাকা ছোট বোন মারিয়া মায়ের চিৎকারে ঘুম থেকে জেগে মাকে বাঁচাতে গেলে সেও আহত হয়।

এ ঘটনায় আহত মারিয়া আক্তার জানায়, আমি মায়ের পাশে ঘুমিয়েছিলাম। মায়ের কান্নায় ঘুম থেকে জেগে দেখি আব্বা মাকে দা দিয়ে কোপাচ্ছে। আমি মাকে বাঁচাতে গেলে আমার হাতেও দায়ের কোপ লাগে। আব্বা মাকে কুপিয়ে মেরে ফেলে ঘর থেকে বের হয়ে যায়। আমি এখন কাকে মা ডাকব?

কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হোসেনপুর সার্কেল) মো. সোনাফর আলী জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহত রহিমার মরদেহ কটিয়াদী মডেল থানায় নিয়ে এসেছি।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। রহিমা খাতুনের হত্যাকারী স্বামী রতন মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

LEAVE A REPLY