কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে কর্মস্থল মুখি যাত্রীদের ভীড়, দিতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া

10

মাদারীপুর প্রতিনিধি :
ঈদের ছুটি শেষে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট হয়ে কর্মস্থল রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছে কর্মজীবি মানুষ। শুক্রবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে এ নৌরুটে যাত্রীদের ভীড় আরো বাড়ছে ।

লঞ্চগুলোতে ভীড় বেশি। ফেরিতে যানবাহনের চাপ সহনীয় থাকলেও যাত্রী চাপ বেশি। দক্ষিনাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি যানবাহন ও কাঁঠালবাড়ি থেকে ছেড়ে যাওয়া স্পীডবোটে ও লঞ্চগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন যাত্রীরা।

তবে শিমুলিয়া থেকেও দক্ষিনাঞ্চলগামী যাত্রী চাপ উল্ল্যেখযোগ্য। ঘাট এলাকায় বিআইডব্লিউটিএ,পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিপুল সংখ্যক আইন শৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত থেকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করছেন।

ঘাটের একাধিক সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুট হয়ে দক্ষিনাঞ্চলের যাত্রীদের ভীড় বাড়তে শুরু করে। কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি লঞ্চেই ছিল উপচেপড়া ভীড়। লঞ্চে ভীড় সামাল দিতে বিআইডব্লিউটিএ,পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ বিপুল সংখ্যক আইন শৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। ফেরিতে যানবাহনের চাপ তেমন নেই তবে যাত্রীদের পর্যাপ্ত চাপ রয়েছে। স্পীডবোটেও চাপ সহনীয়।

বরিশাল, খুলনাসহ দক্ষিনাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিটি যানবাহন বোঝাই হয়ে যাত্রী কাঠালবাড়ি ঘাটে আসছে। তবে ঘাট পর্যন্ত আসতে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে দেড় থেকে দ্বিগুন ভাড়া। এরুটের স্পীডবোট ও কিছু কিছু লঞ্চেও বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। নদী পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাড়তি ভাড়া গুনে গন্তব্যে পৌছাতে হচ্ছে।

LEAVE A REPLY