তৃণমূল সফরে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা

46

দলের ৭৮টি সাংগঠনিক জেলার প্রতিটিতে কেন্দ্রীয় নেতাদের সমন্বয়ে একটি করে টিম গঠন করেছে দলটি। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার পর দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা রাখতে হাইকমান্ডের নির্দেশে এ সফরে বের হচ্ছেন নেতারা। একই সঙ্গে কারাবন্দি দলীয় নেতাকর্মীদের পরিবারের খোঁজখবর ও তাদের আইনি সহায়তার বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দেবেন তারা।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যুগান্তরকে বলেন, গ্রেফতার হওয়া প্রত্যেক নেতাকর্মী ও তার পরিবারের খোঁজখবর রাখা দলের দায়িত্ব। তাদের আইনিসহ সব ধরনের সহায়তার জন্য এরই মধ্যে নিজ নিজ জেলার নেতাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

টিমের দায়িত্বপ্রাপ্তরা হলেন- ঢাকা বিভাগের টাঙ্গাইলে মাহমুদুল হাসান, মানিকগঞ্জে আবদুস সালাম, মুন্সীগঞ্জে আবদুল হাই, ঢাকা জেলায় আবদুল মান্নান, নারায়ণগঞ্জ মহানগরে জয়নুল আবেদিন ফারুক, নারায়ণগঞ্জ জেলায় তৈমুর আলম খন্দকার ও নরসিংদীতে ড. আবদুল মঈন খান। চট্টগ্রাম বিভাগের নোয়াখালীতে মোহাম্মদ শাহজাহান, ফেনীতে আবদুল আউয়াল মিন্টু, চট্টগ্রাম মহানগরে আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চট্টগ্রাম উত্তরে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণে মাহবুবের রহমান শামিম, লক্ষ্মীপুরে বরকতউল্লাহ বুলু, কক্সবাজারে মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, রাঙ্গামাটিতে মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, বান্দরবানে সুকমল বড়–য়া ও খাগরাছড়িতে গোলাম আকবর খোন্দকার। পঞ্চগরে ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, দিনাজপুরে লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, বগুরায় ব্যারিস্টার আমিনুল হক, রাজশাহীতে মিজানুর রহমান মিনু, পাবনায় হাবিবুর রহমান হাবিব ও খুলনায় অধ্যাপক এমএ মাজেদ। এছাড়া যশোরে তরিকুল ইসলাম, পটুয়াখালীতে এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাব হোসেন চৌধুরী, বরিশাল মহানগর ও দক্ষিণ জেলায় মজিবুর রহমান সরোয়ার ও বরিশাল উত্তরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেলিমা রহমানকে। ঢাকা মহানগরে দলের পাঁচ সিনিয়র নেতাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তারা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান ও নজরুল ইসলাম খান। বাকি সাংগঠনিক জেলায়ও কেন্দ্রীয় নেতাদের দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া হয়েছে। আর পুরো টিমের সমন্বয় করবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

হাইকমান্ডের নির্দেশনা পেয়ে এরই মধ্যে সফরে বেরও হয়েছেন কেন্দ্রীয় একাধিক নেতা। শনিবার স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসীন আলীর মিরপুরের পল্লবীর বাসায় যান স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। এ সময় ইয়াসীনের স্ত্রী ইয়াসমিন সুলতানা শিমু ও তার তিন মেয়ের খোঁজখবর নেন তিনি। নোয়াখালী সফরে গিয়েছেন মোহাম্মদ শাহজাহান। সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর সফরে যাবেন স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা কারাবন্দি নেতাকর্মীদের খোঁজখবরের পাশাপাশি মঙ্গলবার দলের বিক্ষোভ কর্মসূচিতেও অংশ নেবেন। এর মধ্যে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত আন্দোলন কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে সফল করার বার্তা রয়েছে বলেও দলীয় সূত্র জানিয়েছে।

LEAVE A REPLY