দেশের দুঃসময়ে কাজী জাফর আহমেদের বড় প্রয়োজন ছিল- কামরুল হুদা

152

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ও জাতীয়তাবাদী যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা মোঃ কামরুল হুদা বলেন – “অবৈধ অগণতান্ত্রিক সরকার দেশের ক্ষমতায় চেপে বসেছে। তারা দেশের আইন আদালত মানেনা। দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের রায় মানেনা। ক্ষমতাসীন শীর্ষনেতারা প্রতিনিয়ত অদালত অবমাননাকর বক্তব্য দিয়ে যাচ্চেন। আবার তারা নীল নকশার নির্বাচন করার পায়তারা করছেন। এবার বেগম খলেদা জিয়ার নেতৃত্বে জনগনকে সাথে নিয়ে নীলনকশার নির্বাচন প্রতিহত করা হবে, ইনশাআল্লাহ।
বর্তমানে দেশে দুঃসময় চলছে, এসময়ে সবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদের বড় প্রয়োজন ছিল। কিন্তু তিনি অকালেই আমাদের থেকে হারিয়ে গেছেন। কাজী জাফর শুধু একজন রাজনীতিবীদ ও প্রধানমন্ত্রী ছিলেন না, তিনি ছিলেন এদেশের মেহনতি মানুষের অকৃত্রিম বন্ধু। বর্তমানে দেশে যে রাজনীতির হানাহানি চলছে, কাজী জাফর এ ধরনের রাজনীতিতে বিশ্বাস করতেন না। তিনি বিশ্বাস করতেন শান্তির রাজনীতি। কাজী জাফর একটি ইনষ্টিটিউট। তার জীবন থেকে অনেক কিছু শেখার আছে এবং শিখেছি। দেশ ও জাতি যতদিন বেঁচে থাকবে কাজী জাফরকে ততদিন মানুষ স্মরণ করবে। “

আজ রোববার সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপজেলা চৌদ্দগ্রামের চিওড়া কাজী বাড়িতে ২০ডলীয় জোট কর্তৃক আয়োজিত স্মরণ সভায় বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন। উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ চৌধুরী পাশার সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক এমপি নবাব আলী আব্বাস খান, যুগ্ম মহাসচিব এএসএম শামীম, চৌদ্দগ্রাম উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার শাহ আলম, যুগ্ম আহবায়ক নুর হোসেন বলাই, পৌর বিএনপির সদস্য সচিব হারুন অর রশিদ, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়াজী, খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা শাখাওয়াত হোসেন, চৌদ্দগ্রাম উপজেলা যুব সংহতির সভাপতি মনির হোসেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি, বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ।
এদিকে যানজটের নাকালে পড়ে মধ্য পথ থেকে ঢাকায় ফিরে গেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, খালেদা জিয়ার প্রেস উইং দিদারুল আলম, বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আউয়াল, জাতীয় পার্টির মহাসচিব সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামাল হায়দারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।
কাজী জাফরের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দিনব্যাপী কোরআন খতম, মিলাদ মাহফিল, কবর জিয়ারত ও আলোচনা সভা আয়োজন করে জাতীয় পার্টি ও উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ।
সকালে কাজী জাফর আহমেদের কবরে ফুলদিয়ে দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জাতীয় পার্টি, বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

LEAVE A REPLY