পিরিতের নগর চলচ্চিত্রের মাধ্যমে নায়িকা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন নবাগত নায়িকা সামিয়া মিতু

82

পিরিতের নগর চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন নবাগত নায়িকা সামিয়া মিতু। সামিয়া মিতুর বিপরীতে অভিনয়ের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে কলকাতার কোন এক আলোচিত অভিনেতা। এই ছবিটি নির্মাণ করবেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা টিপু সুলতান।

‘পিরিতির নাগর’ ছবিটি প্রযোজনা করছেন  ইন্ডেক্স মাল্টিমিডিয়া কর্ণধার টিপু । তিনি এর আগে সময় সাময়িক কয়েকজন নায়িকাদের নিয়ে বেশ কিছু ছবি প্রযোজনার পর এবার ঢালিউডের নতুন মুখ সুদর্শন সামিয়া মিতুকে নিয়ে ‘পিরিতের নাগর’ শিরোনামের নতুন ছবির শুটিং করবেন ।
এরই মধ্যে এফডিসির কয়েকটি ফ্লোরে ছবিটির আংশিক শুটিং শুরু হয়েছে। খুব শিগগির ‘পিরিতের নাগর ছবিটির মহরত করা হবে বলে জানায় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ইন্ডেক্স মিডিয়া।

সামিয়া মিতু চলচ্চিত্রে নায়িকা হবেন বলে প্রায় ছোট বেলা থেকেই বাবার সাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যেতেন। বাংলাদেশের অন্যতম কন্ঠ সম্রাট শাহ বাঙালি তার পিতা ।  মোহাম্মদ শাহ বাঙালি  চট্টগ্রামের বাসিন্দা তিনি একজন খ্যাতিনামা গণসঙ্গীত শিল্পী ছিলেন। তিনি গানের বিষয়বস্তু জানতে পারলে সাথে সাথে গানের কথা ও সুর তৈরি করে গেয়ে ফেলতে পারতেন। সামিয়া মিতু শাহ বাঙালির দ্বিতীয় সংসারের পাঁচ সন্তানের মধ্যে সবার ছোট।

সামিয়া মিতু বলেন, ‘এটা আমার পিতার আসল নাম নয়। তার আসল নাম মোহাম্মদ শফিউল্ল্যা। তার শাহ বাঙালি নামটি দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৬৫ সালে চট্টগ্রামের মুসলিম হলে এক সমাবেশে গান গেয়ে পরিচিত হন বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে। ১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধু ঘোষিত ৬ দফা ছিল শাহ বাঙালির জীবনের টার্নিং পয়েন্ট। বঙ্গবন্ধু তাকে বলেন, তিনি যেখানেই ৬ দফা নিয়ে জনসভা কিংবা সমাবেশ করবেন সেখানে গান গাইতে হবে তাকে। বঙ্গবন্ধুর এ কথা তিনি লুফে নেন। পরে বঙ্গবন্ধুর দেওয়া নামটিতেই তিনি ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করেন এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নামটি প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়।
তিনি বলেন, মেয়ে হিসেবে আমার শরীরেতো তারই রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে। আমি হয়তো তার মতো প্রতিভাবান নই। কিন্তু আমি তার সন্তান হিসেবে যে ছিঁটেফোটা পেয়েছি তাকে শাণিত করে তোলার আপ্রাণ চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

সামিয়া মিতু গতানুগতিক ধারার চলচ্চিত্র কাজ করতে আসেননি। তিনি মৌলিক ধারার  চলচ্চিত্রে নিয়মিত কাজ করতে চান বলে জানান। তিনি তার প্রথম চলচ্চিত্র নিয়ে অনেক আশাবাদী।
কাজের অভিজ্ঞতা সর্ম্পকে জানতে চাইলে তিনি  জানান ইতোমধ্যেই প্রায় কয়েকটি TVC তে কাজ করেছেন ও আরো তিনটি  TVC তে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। সেগুলোর কাজ আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই শুরু হবে। 

তিনি বলেন ‘আমি প্রস্তুত হয়ে এসেছি। এজন্য অভিনয়ের প্রশিক্ষণ নিয়েছি। এখন থেকে নিয়মিত চলচ্চিত্রে কাজ করে যেতে চাই। পরিচালক যেভাবে বলেন সেভাবেই সর্ট দেওয়ার চেষ্টা করছি। ঠিক না হলে একাধিকবার সর্ট দিচ্ছি। সহশিল্পীদের কাছ থেকে কাজের ক্ষেত্রে দারুণ সহযোগিতা পাচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, ‘তাছাড়া বাবার সাথে বিভিন্ন প্রোগ্রামে গিয়েছি তাই বিভিন্ন শুটিং কাছ থেকে দেখার সুযোগ পেয়েছি। শুটিং ইউনিটে থেকে তাদের অভিনয় দেখেছি। সেখান থেকে বোঝার চেষ্টা করেছি। তাছাড়া কয়েকটি মিউজিক ভিডিও কাজ করাতে আমার কাজের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করেছে। এফডিসি পাড়ার অনেকে বলে থাকেন নায়িকা মাহিয়া মাহির সাথে সাদৃশ্য রয়েছে তার।তিনি বেশ কিছু নাটকে অফার পেয়েছেন কিন্তু তিনি চলচ্চিত্র নিয়েই স্বপ্ন বুনে আছেন,তাই আপাতত নাটকে অভিনয় এড়িয়ে যান।

LEAVE A REPLY