বিপিএলে চট্টগ্রাম পর্বে রংপুর রাইডার্সের মুখোমুখি বরিশাল বুলস

171

বিপিএলে চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম দিনে মুখোমুখি হচ্ছে রংপুর রাইডার্স ও বরিশাল বুলস। এটাকে বলা যেতে পারে ধারাবাহিক বোলিং আক্রমণের সাথে ইনফর্ম ব্যাটিং লাইন আপের লড়াই। বোলিংটা রংপুরের। ব্যাটিংটা বরিশালের। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার সন্ধা পৌনে ছয়টায় শুরু ম্যাচ।

এই ম্যাচের আগে পয়েন্ট টেবিলটাও দেখে নিন। বরিশাল ৪ ম্যাচ খেলে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে যুগ্মভাবে। রংপুর এক ম্যাচ কম খেলেছে। ৩ ম্যাচের একটিতে হার। দুটিতে জয়। পয়েন্ট চার। তিন দলের পয়েন্ট ৬। তাদেরও কেবল ৪। সেই সুবাদে দ্বিতীয় স্থানে তারা।

কিন্তু রংপুরকে পরীক্ষাই দিতে হবে। বিপিএল ধীরে ধীরে বড় রানের আসর হয়ে উঠছে। শহীদ আফ্রিদি, আরাফাত সানি, সোহাগ গাজীরা খুলনা টাইটান্সকে বিপিএলের ইতিহাসের সর্বনিম্ন ৪৪ রানে অল আউট করে দিয়েছিলেন। এই তিনজন মিলে এখন পর্যন্ত ১৭ উইকেট নিয়েছেন। স্পিনে বড় শক্তি রংপুরের। বরিশালের বোলিংয়ে আল-আমিন হোসেন, থিসারা পেরেরা, তাইজুল ইসলাম, রায়াদ এমরিটরা আছেন।

কিন্তু বরিশালের ব্যাটিংটা দেখুন। শাহরিয়ার নাফীস তার স্বর্ণযুগের মতো ব্যাট করছেন। ৪ ম্যাচের ৩টিতে ফিফটি। দুটিত শতরানের জুটি। এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের তালিকায় বরিশালের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম নাফীসের পরই দ্বিতীয় স্থানে। তার দুই ফিফটি। শুধু কি তাই? ওপেনার ডেভিড মালানও ১৩৩ রান করে ফেলেছেন।

সেখানে রংপুরে ১০৪ রান মোহাম্মদ শাহজাদের। আফগান ওপেনারেরটাই দলের সেরা। তারপর উল্লেখ্য সৌম্য সরকারের মোট ৩৮। তাহলে ব্যবধানটা ধরাই যাচ্ছে। সুতরাং, ব্যাটিংয়ের দূর্বলতা নাঈম ইসলামের দলের জন্য ভাবনার বিষয়। মোহাম্মদ মিথুন, লিয়াম ডসন, আফ্রিদিরা রানে নেই। শেষ ম্যাচটিতে তারা মাত্র ৯২ রানে অল আউট হয়েছে। রংপুরের জন্য ব্যাটিং প্রমাণের দায়ও শক্তিশালী ব্যাটিংয়ের দল বরিশালের বিপক্ষে।

LEAVE A REPLY