বিশ্বের নিরাপদ দেশ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩য়

20

আধুনিক বিশ্বের অন্যতম দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত হচ্ছে বর্তমান বিশ্বের তৃতীয় নিরাপদ দেশ। Global database Numbeo কর্তৃক প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বিশ্বের ১৩৩টি দেশের মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাম রয়েছে তৃতীয় অবস্থানে।

সম্প্রতি বিশ্বের বৃহত্তম সংস্থা Global database Numbeo বার্ষিক নিরাপদ দেশের নাম প্রকাশ করতে গিয়ে বিভিন্ন দেশের ক্রাইম সূচক প্রকাশ করেছে। এতে তৈল সমৃদ্ধ দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত সুরক্ষা সূচকে ৮৪.৫৫ পয়েন্ট এবং ক্রাইম সূচকে ১৫.৪৫ পয়েন্ট পেয়ে বিশ্বের তৃতীয় এবং মধ্যপ্রাচ্যের দেশের মধ্যে দ্বিতীয় সুরক্ষিত দেশ হিসাবে বিবেচিত হয়েছে।

প্রতিবেদনে Global database Numbeo ব্যাখ্যা করেন “অপরাধ সূচক একটি প্রদত্ত শহর বা একটি দেশের সামগ্রিক স্তরের অপরাধের একটি অনুমান। অপরাধের মাত্রা ২০ শতাংশের কম হলে আমরা সেটাকে নিম্ন মানের অপরাধ হিসাবে বিবেচনা করি। ৪০ থেকে ৬০ এর মধ্যে অপরাধের মাত্রা মাঝারি এবং অপরাধের মাত্রা ৮০ এরও বেশি হলে উচ্চ হিসাবে বিবেচনা করি।

২০২০ সালের জুলাই পর্যন্ত শীর্ষ দশটি নিরাপদে দেশের তালিকাতে রয়েছে ১.কাতার (৮৮.১০ পয়েন্ট) ২.তাইওয়ান (৮৪.৭৪) ৩.সংযুক্ত আরব আমিরাত (৮৪.৫৫) ৪.জর্জিয়া ৫.ওমান ৬.হংকং ৭.স্লোভানিয়া ৮.আইল অফ ম্যান ৯.সুইজারল্যান্ড ১০.জাপান।

তালিকায় সবচেয়ে নিচের ১০টি দেশ হলো
ভেনেজুয়েলা, পাপুয়া নিউ গিনি, দক্ষিন আফ্রিকা, আফগানিস্তান, হন্ডুরাস
ত্রিনিদাদ টোবাগো, ব্রাজিল,গায়ানা, এল সালভাদর,সিরিয়া।

সুরক্ষা সূচক এবং অপরাধ সূচকের উপর ভিত্তি করে মোট ১৩৩ টি দেশের তালিকায় প্রকাশ করেন Global database Numbeo.

উল্লেখ্য মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে নিরাপদ ১১টি দেশের তালিকাতেও রয়েছে বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশের নাগরিকদের বসবাসের অন্যতম দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত।

এছাড়াও এই বছরের শুরুর দিকে আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবি ২০২০ সালের ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস রিপোর্টে ‘শীর্ষ আরব শহর’ হিসাবে স্থান পেয়েছিল।

LEAVE A REPLY