মাদারীপুরের প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, ২ গুলিবিদ্ধসহ আহত ৮ জন

43

মাদারীপুর প্রতিনিধি : মাদারীপুরের রাজৈরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় দুইজন গুলিবিদ্ধসহ ৮ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল (২৬ মে) মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার উত্তর সীমান্তে পান্থাপাড়া নামক স্থানে। আহতদের মধ্যে দুইজনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৬ জনকে আটক করেছে।

স্থানীয় সুত্র জানায়, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান টিপু সুলতানের ভাই কামরুজ্জামান লক্ষণ দাসকে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা বলায় লক্ষণ দাস এর সমর্থকরা কামরুজ্জামান এর উপর হামলা করে। ঘটনাটি মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দু’গ্রুপের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সংঘর্ষে পার্শ্ববর্তী চরের কিছু লোকজন এসে যোগদান করে। তখন দুজন গুলিবিদ্ধ হন। এসময় আরো ৬ জন আহত হয়। আহত বাদল খোন্দকারকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং মোকা মাতুব্বর ও কাদের মাতুব্বরকে ফরিদপুর মেডিকল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও সাব্বির তালুকদার নামের এক যুবক রাজৈর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। গুলিবিদ্ধদের বিষয়ে এক গ্রুপকে অপর গ্রুপ কে দোষারোপ করছে।

কবিরাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান জানান, লক্ষণ দাস সদ্য ঢাকা থেকে আসায় তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা নিয়ে আমার ভাইয়ের গায়ে হাত তুলে তার লোকজন।

লক্ষন দাস জানান, এলাকাবাসীর আহবানে ত্রান দিতে ঢাকা থেকে এলাকায় আসি এবং ১৪শত পরিবারে ত্রান বিতরন করি। আরো ৭শত পরিবারের ত্রান আমার গোডাউনে মৌজুদ রয়েছে। ত্রাণ বিতরণের সময় চেয়ারম্যানের ভাই এসে বাধা দেয়।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার শওকত জাহান বলেন, ঘটনায় আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় দুটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

LEAVE A REPLY