হাওরে ধান কাটা তদারকি করেন- এমপি রতন ও ডিসি আব্দুল আহাদ

18

সাইফ উল্লাহ, সুনামগঞ্জ:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, জামালগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন হাওরে ধান কাটা তদারকিতে বেরিয়েছেন সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন। মঙ্গলবার ২১ এপ্রিল সকাল থেকে হাওরে হাওরে ঘুরে কৃষকদের দ্রুত ধান কাটার পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা দিচ্ছেন। অপর দিকে ২১ এপ্রিল মঙ্গলবার সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ জেলার তাহিরপুর, জামালগঞ্জ ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার হাওরের ধান কাটা কার্যক্রম তদারকি করেন। তারা হাওরে ঘুরে কৃষক ও শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় কৃষক ও শ্রমিকরা প্রশাসনের কাছে তাদের সমস্যা ও সহায়তার কথাও জানান।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পাউবোর প্রধান প্রকৌশলী সিলেট মোঃ নিজামুল হক ভূইঁয়া, অতিরিক্ত পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, সিলেট, শ্রী নিবাস দেবনাথসহ জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বিশ্বম্ভরপুর জনাব সমীর বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী ২৬ এপ্রিল ২০২০ তারিখ হতে প্রবল বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে। এর ফলে সুনামগঞ্জ জেলায় অকাল বন্যা হওয়ারও আশংকা রয়েছে। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে আগাম বন্যার হাত থেকে বোরো ফসল রক্ষার জন্য বিভাগীয় কমিশনার নিজে মাঠ পর্যায়ে ফসল কাটার কার্যক্রম তদরকি করছেন বলে জেলা প্রশাসন জানিয়েছে।
সিলেট বিভাগীয় কমিশনার ও সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকসহ কর্মকর্তাগণ মঙ্গলবার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার করচার হাওরসহ বিভিন্ন হাওরের ধান কাটা কার্যক্রম সরেজমিন তদারকি করেন।

তাছাড়া অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, সুনামগঞ্জ মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ জগন্নাথপুর উপজেলার মইয়ার হাওর ও নলুয়ার হাওরসহ বিভিন্ন হাওরের ধান কাটা কাজ তদারকি করেন এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), সুনামগঞ্জ মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী শাল্লা উপজেলার বিভিন্ন হাওর ধান কাটা কাজ তদারকি ও সঠিক সময়ে নিরাপদে ধান কর্তন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন।

জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন সামাজিক/রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং কৃষক প্রতিনিধিগণের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করে দ্রুততম সময়ে ধান কাটার কাজে সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে নিযুক্ত হবার বিষয়ে এবং সকল সচল হার্ভেস্টিং মেশিন ধান কাটার কাজে নিয়োজিত কারার বিষয়ে অনুরোধ জানান। এছাড়া জেলা পর্যায়ের দপ্তরের কর্মকর্তাগণকে ধান কাটার কাজ যথাযথ মনিটরিং এর জন্য উপজেলাওয়ারী দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করার মাধ্যমে জেলার সকল শ্রেণি মানুষের সহযোগিতায় সঠিক সময়ে নিরাপদে কৃষকের ঘরে ধান উত্তোলন করা সম্ভব হবে। এই কাজটাই আমরা এখন বিভাগীয় কমিশনার স্যারের সঙ্গে হাওরে হাওরে গিয়ে করেছি।

LEAVE A REPLY