খাবার হিসাবে যেসব ফুল বেশ সুস্বাদু

1086

ফুল সৌন্দর্যের প্রতীক এবং সবাই ভালোবাসে। সৌন্দর্য বাড়াতে বাড়ির আঙিনায় ফুল গাছও লাগান অনেকে মৌসুম অনুযায়ী। কখনও কখনও বিকেলের চা খেতে খেতে কিংবা একান্তে কিছু সময় কাটাতে বাগানে বসে নানা ফুলের সমাহার দেখে দু’চোখ ভরে যায়। তবে শুধু সৌন্দর্য বাড়াতে নয়, সুস্বাদু খাবার তৈরিতেও ফুলের ব্যবহারের জুড়ি নাই। অবাক হলেও বিষয়টা সত্যি, এমন কিছু ফুল আছে, যেগুলো কেবল সৌন্দর্যের জন্যে নয়, খাওয়াও যেতে পারে সেগুলো।


rose-flowers

গোলাপ

আদিকাল থেকে ভালোবাসার প্রতীক গোলাপ খাবার হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ভারতে বিভিন্ন খাবারে গোলাপজল, শুকনো গোলাপের পাপড়ি গুঁড়ো করে বিভিন্ন পদে দেয়ার রেওয়াজ প্রচলিত। এছাড়া রোজ (গোলাপ) পেটাল টি ব্যাকটেরিয়াল, ফাংগাল ইনফেকশন, আলসার, অ্যাস্থমা কমাতে পারে। এতে ভিটামিন এ, সি, ডি, ই ও বি৩ আছে। তাই অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসেবে ভালো কাজ করে রোজ পেটাল টি।

bananaflower

কলামোচা
কলামোচা অর্থাৎ কলার ফুল অত্যন্ত সুস্বাদু একটি খাবার। বাঙালির অতি পছন্দের বিখ্যাত এক পদ চিংড়ি কিংবা ডালের বড়ি দিয়ে মোচার ঘন্ট। আহা, জিভে জল এসে যায়!।

darmsitck-flower

সজনে ফুল
সজনে ফুলও খাওয়া যায়, স্বাদেও বেশ। গরম গরম ধোঁয়া ওঠা ভাতের সাথে সজনেফুলের বড়া, ব্যস রসনার তৃপ্তিতে আর কী চাই!

pumkin_plawerকুমড়ো ফুলের বড়া
চালের গুঁড়ো বা বেসনে বিভিন্ন মসলা যোগে এক ধরনের বাটার বানিয়ে কুমড়ো ফুল চুবিয়ে ডুবো তেলে ভাজাকে কুমড়ো ফুলের বড়া বলে। এই বড়া খেতে খুবই সুস্বাদু। কুমড়ো ফুল ছাড়াও বক ফুলের বড়া বাঙালির অতি প্রিয় আরেকটি খাবার।

merry-goldগাঁদা ফুল
গাঁদা ফুলের পাপড়ি চায়ে মিশিয়ে খাওয়া হয়। এটি দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে। গ্রিন টি’র সাথে সাধারণত জুঁই ফুল মিশিয়ে খাওয়া হয়।lavenderল্যাভেন্ডার ফুল
ল্যাভেন্ডার ফুল থেকে তৈরি এর এসেনসিয়াল অয়েল সুগন্ধি হিসেবে বিভিন্ন খাবারে ব্যবহৃত হয়। লাইলাক শরবত, আইসক্রিম এবং জ্যামে মিশিয়ে খাওয়া যায়।

প্রসঙ্গত, ফুল খেতে চাইলে, যেসব ফুলে কীটনাশক দেয়া হয় নি অবশ্যই এমন ফুল খেতে হবে। শুধুমাত্র ফুলের পাপড়ির অংশই খাওয়ার যোগ্য। যে ফুলে অ্যালার্জি আছে সেগুলো থেকে দূরে থাকুন।

LEAVE A REPLY