ফেসবুকে কোরআন শরীফ ও নবীকে নিয়ে কটুক্তিকর পোস্ট শেয়ার করায় কলেজছাত্র আটক

14

মোনাসিফ ফরাজী সজীব, মাদারীপুর, ২৭-০৭-১৯

কোরআন শরীফ ও হযরত মোহাম্মদ (সা:) কে নিয়ে নিয়ে কটুক্তি করে ফেসবুকের পোস্ট শেয়ার করে ধর্মীয় উস্কানী দেয়ার অভিযোগে শনিবার বেলা ১২টার দিকে সৈকত ঢালী নামে এক কলেজছাত্রকে আটক করেছে মাদারীপুরের ডাসার থানা পুলিশ। আটককৃত সৈকত ঢালী কালকিনি উপজেলার নবগ্রাম ইউনিয়নের বেতবাড়ী গ্রামের খোকন ঢালীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের প্রক্রিয়া চলছে।

কলেজ কর্তৃপক্ষ, একাধিক শিক্ষার্থী ও ডাসার থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার ডি.কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী স্কুল এন্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর মানবিক শাখার ছাত্র সৈকত ঢালী কোরআন ও নবীকে নিয়ে কটুক্তি করা একটি তথ্য অন্যজনের ফেসবুক থেকে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক পেইজে শেয়ার করে। একই সাথে কলেজে বিষয়টি নিয়ে ধর্মীয় উস্কানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। বিষয়টি মুর্হুতের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে কলেজের অন্য শিক্ষার্থীরা তাকে ঘেরাও করে মারধরের চেষ্টা করে। পরে ডাসার থানা পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখেন। এই ঘটনায় কলেজের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে বিক্ষোভ মিছিল করে তার বহিস্কার দাবী করেন। পরে কলেজ কর্তৃপক্ষ সৈকত ঢালীকে মৌখিকভাবে কলেজ থেকে বহিস্কারের ঘোষনা দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এব্যাপারে ডি.কে. আইডিয়াল সৈয়দ আতাহার আলী স্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সৈয়দা মমতাজ বেগম বলেন, আমি ব্যক্তিগত কারণে ছুটিতে আছি। ওই ছাত্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কলেজের অন্য শিক্ষকদের বলে দিয়েছি।’

এব্যাপারে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, ‘বিষয়টি জেনে ডাসার থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক সৈকত ঢালীকে আটক করে। তার ফেসবুক পেইজ দেখা দেছে, সে অন্য একজনের একটি ধর্মীয় উস্কানিমূলক লেখা শেয়ার করেছে। সেই সাথে লেখাটি শেয়ার করার জন্যেও আহবান করেছে। যা স্পর্শকাতর হিসেবে গণ্য। তাই যে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছে তাকেও আটকের চেষ্টা চলছে। আর সৈকত ঢালীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

LEAVE A REPLY