সাঁওতাল হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখান, ঢাকা-দিনাজপুর সড়ক অবরোধ

9

শামীম রেজা ডাফরুল, গাইবান্ধা, ২৮-০৭-২০১৯

গাইবান্ধায় আলোচিত সাঁওতাল হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও ভাংচুর মামলার চার্জশীটে প্রধান আসামীসহ গুরুত্বপুর্ণ আসামীদের নাম বাদ দেয়ার প্রতিবাদে রোববার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল সম্প্রদায় ও সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার কমিটির সদস্যরা বাগদাফার্ম এলাকায় ঢাকা-দিনাজপুর সড়ক অবরোধ করে।

বিকেল ৩টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত অবরোধ চলাকালে কয়েক শ’ গাড়ী রাস্তার দু’পাশে আটকা পড়ে। অবরোধ কর্মসূচি পালনকালে বক্তব্য রাখেন সাহেবগঞ্জ-বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ফিলিমন, আদিবাসী নেতা বার্নাবাশ টুডু, প্রিসিলা মুরমু, স্বপন শেখ, সুফল হেমব্রম, আদিবাসী নেতা রাফায়েল হাসদাসহ অন্যরা।

পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রকৌশলী আলহাজ্ব মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন ও থানার অফিসার ইনচার্জ মেহেদী হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি প্রধান আতাউর রহমান বাবলু, ভাইস চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম তাজু ঘটনাস্থলে গিয়ে আদিবাসী নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে বিষয়টি আইনী ভাবে মোকবেলার পরামর্শ দিলে বিক্ষুদ্ধ আদিবাসীরা অবরোধ তুলে নেয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল হাই সরকার সাঁওতাল হত্যা মামলা তদন্ত শেষে ৯০ জনকে অভিযুক্ত করে গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চার্জশীট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর সাঁওতাল পল্লীতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার পর উপজেলার হরিণমারি গ্রামের মাহলে হেমব্রমের ছেলে থোমাস হেমব্রম বাদি ৩৩ জন নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ৫শ’ থেকে ৬শ’ জনকে আসামি করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর পরপিবিআই এই মামলার চার্জশীট দাখিল করল।

LEAVE A REPLY