র্ধমপাশায় ছাত্রলীগের দু’পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

104

সাইফ উল্লাহ, সুনামগঞ্জ :
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গণে এক পক্ষের কর্মী সভা ও অপর পক্ষের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এতে কেউ আহত হয়নি বলে জানা যায়।

জানা যায়, ধর্মপাশা উপজেলা ছাত্রলীগের একাংশের সভাপতি আবু সাদাত তিতাস ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মোহন এর সমর্থিত ছাত্রলীগ গত ১২ নভেম্বর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ২২ নভেম্বর জয়শ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের এক কর্মী সভার আহ্বান করে। অপর দিকে গত ১৩ নভেম্বর উপজেলা ছাত্রলীগের অপরাংশের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ও সাধারণ সাম্পাদক আল আমিন খানের নেতৃত্বাধীন ছাত্রলীগ ২২ নভেম্বর জয়শ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলন আহ্বান করে।

শুক্রবার সকাল থেকে দুই পক্ষের নেতাকর্মীরা জয়শ্রী ইউনিয়ন খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গণে সমবেত হতে থাকে। দেলোয়ার হোসেন ও আল আমিন খানের নেতৃত্বাধীন নেতাকর্মীরা দুপুর একটার দিকে তাদের সম্মেলন মঞ্চে অবস্থান করে। এ নিয়ে আবু সাদাত তিতাস ও মনিরুজ্জামান মোহন এর নেতৃত্বাধীন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে দুপুর ১টা ১৫মিনিটে ধর্মপাশা থেকে তিতাস ও মোহন জয়শ্রী এলে সেখানকার ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে পুলিশের বাধা অতিক্রম করে ওই সম্মেলন মঞ্চ দখলের চেষ্টা করে এবং তাদের ব্যানার নামিয়ে ফেলে। এ সময় উভয় পক্ষের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় দেলোয়ার ও আল আমিন খানের সমর্থিত নেতাকর্মীরা সেখান থেকে চলে যায। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি।

পরে বিকেল সাড়ে তিনটায় জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে কর্মী সভা করে তিতাস ও মোহনের নেতৃত্বাধীন ছাত্রলীগ। জয়শ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা রাহুল রানার সভাপতিত্বে ও মোক্তার হোসেনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সাদাত তিতাস। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, ধর্মপাশা উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাজ উদ্দিন আহমেদ, সুনামগঞ্জ জেলা
ছাত্রলীগের সাবেক উপ মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক মহি উদ্দিন আহমেদ কনিক, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহিত লাল তালুকদার মুন, জয়শ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন প্রমূখ।

ধর্মপাশা উপজেলা ছাত্রলীগের একাংশের সভাপতি আবু সাদাত তিতাস বলেন, আমাদের পূূর্ব নির্ধারিত কর্মী সভা ছিল আজ (শুক্রবার)। কর্মী সভার জন্য আমাদের নেতৃবৃন্দ মঞ্চ তৈরিসহ যাবতীয় কাজ করে রাখে। কিন্তু ছাত্রলীগ নামধারী একটি অংশ সম্মেলনের নাম করে আমাদের মঞ্চ দখল করে রাখে বলে আমি জানতে পারি। পরে আমি সেখানে গিয়ে আমার নেতাকর্মীদের নিয়ে দেলোয়ার ও আল আমিনকে মঞ্চ থেকে নামিয়ে দেই এবং মঞ্চ আমাদের দখলে নিয়ে আসি এবং মঞ্চের সার্বিক পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় দলীয় কার্যালয়ে আমরা কর্মী সভা করি।

ধর্মপাশা উপজেলা ছাত্রলীগের অপর অংশের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, তারা কোনো মঞ্চ তৈরি করেনি। সম্মেলনের জন্য আমাদের নেতাকর্মীরা মঞ্চ তৈরি করেছে। আমরা গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সম্মেলন করেছি। এই সম্মেলনকে বানচাল করার জন্য আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের কিছু নেতা হামলা চালিয়ে ছিল। সম্মেলনে ছাত্রলীগ কোনো হামলা চালায়নি বলে দাবি করেন দেলোয়ার হোসেন।

LEAVE A REPLY