ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা সিক্সলেন উদ্বোধনে খুশি দক্ষিনাঞ্চলবাসী

5

মাদারীপুর প্রতিনিধি:
উদ্বোধন হলো রাজধানী ঢাকা থেকে মাদারীপুর হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত দেশের প্রথম সিক্সলেন হাইওয়ে এক্সপ্রেস। অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে পদ্মাসেতু চালুর আগেই দক্ষিনাঞ্চলের মানুষ এই সিক্সলেনের সড়কটি ব্যবহারের সুবিধা পাবেন।

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই সড়কটির উদ্বোধন করেন। সিক্সলেন সড়কের উদ্বোধনের মাধ্যমে দক্ষিনাঞ্চলের মানুষের আর্থ-সামজিক উন্নয়নের পাশাপাশি পণ্য পরিবহন নিরাপদ, সময় সাশ্রয়ী ও আরামদায়ক হবে আশা সংশ্লিষ্টদের।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক্সপ্রেসওয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা, সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিসহ নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা।

ঢাকা-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে হচ্ছে দেশের প্রথম এক্সপ্রেস হাইওয়ে। যেখানে মূল সড়কে থাকবে চারটি লেন। সঙ্গে সড়কের দুই পাশে থাকছে সাড়ে ৫ মিটার করে (একেক পাশে দুই লেন করে) দুটি সার্ভিস লেন। এই এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহার করতে টোল দিতে হবে সব ধরণের যানবাহনকে। এক্সপ্রেসওয়েটি হয়ে ঢাকা থেকে ভাঙ্গা যেতে সময় লাগবে মাত্র ৪২ মিনিট। এক্সপ্রেসওয়েটি চালু হওয়ার সংবাদে দক্ষিণাঞ্চলের সাধারণ মানুষের ভাগ্য খুলতে শুরু করেছে। আগে যেখানে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় নিয়ে যাতায়াত করতে হতো এ অঞ্চলের মানুষের, সেখানে মাত্র ঘন্টাখানেকের মধ্যেই দ্রুত পৌছতে পাড়ার স্বপ্ন এখন হাতের মুঠোয়। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এক্সপ্রেস হাইওয়ের উদ্বোধনের দৃশ্য দেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, ৬ হাজার ৭শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৫৫ কিলোমিটারের সড়কটিতে ছোটবড় ৩১টি সেতুর সাথে থাকছে ৪৫টি কালভার্ট, ৬টি ফ্লাইওভার ও ৪টি রেল ওভারপাসসহ একাধিক আধুনিক সুবিধা। দক্ষিনাঞ্চলের সঙ্গে সড়কপথে যোগাযোগের পরিবর্তন আনতে রাজধানীর যাত্রবাড়ি থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ৫৫ কিলোমিটার সড়ক টু লেন থেকে সিক্স লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়কের পরবর্তী অংশে ভারি যানবাহনের জন্য পৃথক ফোর লেন ছাড়াও রয়েছে হালকা যানবাহনের জন্য আলাদা টু লেন। এছাড়াও ঢাকা ও পূর্বাঞ্চলে যাত্রী, পণ্য পরিবহন নিরাপদ, সময় সাশ্রয়ী ও আরামদায়ক করতে সড়কটিতে রয়েছে ওভারপাস, আন্ডারপাস, কালভার্ট, ফ্লাইওভারসহ আধুনিক সব সুবিধা। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কনন্সট্রাকশন ব্রিগেডের তত্ত্বাবধানে শেষ হয় নির্মাণ কাজ।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসন মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, “ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে আজ সকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনভারমেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন। এক্সপ্রেসওয়েটি চালু হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হলো। তবে পদ্মা সেতু চালু হয়ে গেলে এই স্বপ্ন শতভাগ পূরণ হবে।”

LEAVE A REPLY