চৌদ্দগ্রাম বিএনপি’কে গত জীবনের মত আর বিক্রি হতে দেবোনা “কামরুল হুদা”

746

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি : শনিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা আরিফুর রহমানের স্মরণে শোকসভা ও দোয়ার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কামরুল হুদা বলেন- মরহুম আরিফুর রহমান জাতীয়তাবাদী দলের একজন শক্ত সংগঠক ছিলেন। তার মৃত্যুতে চৌদ্দগ্রাম বিএনপি’র অপুরনীয় ক্ষতি হয়েছে। আমরা একজন কর্মী গড়ার কারিগরকে হারিয়েছি। তাই আজকে এই আরিফুর রহমানের শোকসভা থেকে শপথ নিতে হবে- গণতন্ত্র পুনঃউদ্ধারের এবং তৃণমুল বিএনপি’কে শক্তিশালী করতে ঘরে ঘরে আরিফুর রহমান তৈরী করার।

যদিও গত ৬ মাসে চৌদ্দগ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে তৃণমূলে বিএনপি’র নেতাকর্মীরা অনেক সক্রিয় হয়ে উঠেছে তবে আমাদেরকে আরো শক্তিশালী হতে হবে। চৌদ্দগ্রামের আপামর জনতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমানের আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে দেশের পরিবর্তন চায়। আরিফুর রহমান কিছুদিন পুর্বে জীবনের শেষ রাজনৈতিক বক্তব্যে বলেছিলেন – “যদি একবার চৌদ্দগ্রামে বিএনপি’র প্রার্থীকে ধানের শীষে ভোট দিতে পারতাম তাহলে আর কোন দুঃখ থাকতো না”। এব্যাপারে কামরুল হুদা বলেন -আমি আমার জীবনদশায় আরিফ ভাইয়ের শেষ ইচ্ছা পুরনের সর্বাত্বক চেষ্টা করবো। চৌদ্দগ্রাম বিএনপি’কে গত জীবনের মত আর বিক্রি হতে দেবোনা। ইনশাআল্লাহ..

তিনি আরও বলেন, ইতোমধ্যে গণতান্ত্রিক উপায়ে চৌদ্দগ্রামের বিভিন্ন ইউনিয়ন কমিটি গঠন করায় তৃণমূলে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। তবে কথিত কিছু রাজনৈতিক নেতা অন্য দলের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য দু-একটি সভা করে বিভ্রান্ত ছড়ানোর অপচেষ্টা করছে। আপনাদেরকে তাদের বিভ্রান্তিতে না পড়ে বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে অবস্থিত ডলি রিসোর্ট অডিটরিয়ামে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ও পৌর বিএনপি কর্তৃক আয়োজিত বিশাল শোক সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক এয়াছিন পাটোয়ারী। উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার শাহ আলম এবং পৌর বিএনপির সদস্য সচিব হারুন অর রশিদ মজুমদারের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক বি রহমান, উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক ওয়াহিদুর রহমান মজুমদার মুক্ত, নুর হোসেন বলাই, আবদুল্লাহ হিল বাকী, খোরশেদ কবির শিপন, নুরুন্নবী পাটোয়ারী নুরু, এবং আরিফুর রহমানের দুই ছেলে আতিকুর রহমান, আশিকুর রহমান ও আরিফুর রহমানের ভাই আব্দুল আউয়াল।
পৌর বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক প্রভাষক এয়াকুব আলী, গাজী শহিদ, মোস্তফা কমিশনার, মোঃ হাসান।

বিএনপির উজিরপুর ইউনিয়ন সভাপতি আতিকুল হক, বাতিসা ইউনিয়ন সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মতিন মেম্বার, কালিকাপুর ইউনিয়ন সভাপতি ডাঃ মীর আহমেদ মজুমদার, শ্রীপুর ইউনিয়ন সভাপতি আলী আহমেদ, কাশীনগর ইউনিয়ন বিএনপি’র যুগ্ন-আহ্ববায়ক মামুন মজুমদার, জগন্নাথদীঘি ইউনিয়ন সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন চৌধুরী, চিওড়া ইউনিয়ন সভাপতি শাহীন রেজা, মুন্সিরহাট ইউনিয়ন সভাপতি আবুল কালাম সওদাগর।

উপজেলা যুবদল সভাপতি এম জাকারিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন মামুন, যুবদল নেতা এম এ খায়ের মজুমদার।
পৌর যুবদলের সেক্রেটারী আকতার হোসেন, চৌদ্দগ্রাম পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সেক্রেটারী এছাক ব্যাপারী। উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল হাসনাত মোঃ জোবায়ের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম শামীম, প্রচার সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান রিপন। উপজেলা মহিলাদলের আহবায়ক গুলশান আরা বেগম পুতুলসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, শ্রমিকদল ও তারেক পরিষদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY